করোনার লাশ দাফনে প্রস্তুত ১১ জন যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের জানাজা ও দাফনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে না আসার খবর আসছে সারাদেশ থেকে। এমতাবস্থায় কুমিল্লায় ১১ যুবক একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছেন। তারা এ রোগে মৃতদের জানাজাসহ কাফন-দাফন করবেন।

বিবেক নামে একটি সামাজিক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও কুমিল্লা মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ইউসুফ মোল্লা টিপুর নেতৃত্বে ‘ওরা ১১ জন’ স্বেচ্ছায় এ কাজে এগিয়ে এসেছেন।

এদিকে মৃত ব্যক্তিদের জানাজার জন্য ইমাম এবং মরদেহ বহনের জন্য অ্যাম্বুলেন্স, খাটিয়াসহ সব প্রকার সামগ্রী প্রস্তুত করেছে সংগঠনটি। এতে ওই সামাজিক সংগঠনের ব্যানারে সেবামূলক এ কাজে আত্মদানের জন্য ১১ জনের প্রশংসা করেছেন এলাকাবাসী।

জানা যায়, বিশ্বের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেশে বেড়েই চলছে। আর এ ভাইরাসে এ পর্যন্ত যারাই মৃত্যুবরণ করেছেন, তাদের সেবাযত্ন ও সংস্পর্শে এসে বিপুলসংখ্যক লোক আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে এ ভাইরাসে মৃতদের জানাজা, কাফনদাফনে এগিয়ে আসছেন না কেউ।

বিশেষ করে প্রতিবেশী তো দূরের কথা, বিভিন্ন জায়গায় নিজ সন্তানও দাফনকাফন করতে আসছেন না। এতে এ ভাইরাসে মৃতদের দাফনকাফন নিয়ে কুমিল্লার সর্বত্রই হতাশা বিরাজ করছিল। ঠিক এমতাবস্থায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করলে নিজ খরচে মরদেহ বহন, কবর খনন, জানাজা, কাফনদাফনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত ‘বিবেক’ নামের একটি সামাজিক সংগঠন।

কুমিল্লা মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক এবং বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইউসুফ মোল্লা টিপুর নেতৃত্বে ১১ জন উদ্যমী নেতা ও যুবক এ কাজে এগিয়ে এসেছে। এসব মৃতদেহ দাফন করে তারা স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে থাকার জন্য একটি ভবন নির্ধারণ করেছেন। যতদিন এ মহামারী বিরাজ করবে, এ সংগঠনের ১১ জন নিজ বাড়ি কিংবা লোকালয়ে যাবে না বলে জানিয়েছেন।

কুমিল্লা মহানগরীর ২৭টি ওয়ার্ডে তারা এ কার্যক্রম পরিচালনা করবেন। এতে যুবদলের ওই নেতৃবৃন্দের প্রশংসা করছেন এলাকার সর্বস্তরের মানুষ।

এ দলের অন্যান্য সদস্য হলেন- কুমিল্লা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রোমান হাসান, কোতোয়ালি থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মো. সাইফুল ইসলাম রনি, মহানগর যুবদল নেতা মহিউদ্দিন হোসেন, সহিদুল ইসলাম ছোটন, মহানগর ছাত্রদলের সহসভাপতি আসিফ ইকবাল ফারিয়াল, বিবেকের সদস্য মাহমুদুল হাসান, আজহার বাবু, হাবিবুস ছালেকিন সমাপ্ত, সালেহ আহমেদ ও মো. হাদী।

এদিকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির শুরুতেই সামাজিক সংগঠন বিবেক নগরীতে জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটানো, মাস্ক, স্যানিটাইজারসহ সাধ্য অনুযায়ী নিয়মিত ত্রাণ বিতরণ করে আসছে।

বুধবার এ বিষয়ে বিবেকের প্রতিষ্ঠাতা এবং মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ইউসুফ মোল্লা টিপু বলেন, যতদিন এ করোনাভাইরাস পরিস্থিতি বিরাজ করবে, ততদিন এ সেবামূলক কাজ আমরা অব্যাহত রাখব। মহানগরীর যেখানেই কেউ আক্রান্ত হয়ে মারা যাবে, হট নাম্বারে আমাদের কল করলেই আমরা মৃতদেহের কাছে পৌঁছে যাব।

তিনি বলেন, এ কাজের জন্য অ্যাম্বুলেন্সসহ সব প্রকার পর্যাপ্ত সরঞ্জামাদি আমরা প্রস্তুত করে রেখেছি, করোনায় মৃতদেহ নিয়ে কুমিল্লা মহানগরবাসীকে আর কোনো টেনশন করতে হবে না।

  • জার্নাল বাংলা/সাবা
Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!