কিমে স্বাস্থ্যের বিষয়ে মার্কিন নজরদারি, সন্দেহ চীন,উত্তর কোরিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং আন কার্ডিওভাসকুলার পদ্ধতির পরে মারাত্মক অসুস্থ মঙ্গলবার এমন খবরে সন্দেহ প্রকাশ করেছে দক্ষিণ কোরিয়া, চীন এবং মার্কিন গোয়েন্দাদের সূত্রগুলো। এমনকি হোয়াইট হাউজও বিষয়টি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

উত্তর কোরিয়ার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সূত্রের বরাত দিয়ে সিউল ভিত্তিক ওয়েব সাইট ডেইল এনকে গত সোমবার জানিয়েছে, গত ১২ এপ্রিল প্রক্রিয়াটি চালানোর পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৬ বছর বয়সী কিম।

দক্ষিণ কোরিয়ার দুইজন সরকারি কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শতে এক মার্কিন কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে সিএনএনকে বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গোয়েন্দা নজরদারি করছিল যে অস্ত্রোপচারের পর কিম গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন কি না। তবে কিমের অস্ত্রোপচার সম্পর্কে তার বিস্তারিত কিছু জানান নাই।

এদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার ব্লু হাউস বলেছে যে, উত্তর কোরিয়া থেকে কোনো অস্বাভাবিক লক্ষণ নেই।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জাতীয় সুরক্ষা উপদেষ্টা রবার্ট ও’ব্রায়ন ফক্স নিউজকে বলেছেন, হোয়াইট হাউস ‘খুব কাছ থেকে’ রিপোর্টগুলি পর্যবেক্ষণ করছে। যদিও ব্লুমবার্গ নিউজ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক নামহীন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বলেছে যে, হোয়াইট হাউসকে বলা হয়েছিল অস্ত্রোপচারের পরে কিমের আরও খারাপ অবস্থা হয়েছিল।

তবে, মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগের সাথে পরিচিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সূত্রগুলো কিম মারাত্মক বিপদে রয়েছে এমন তথ্যকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছিল।

আমেরিকায় কর্মরত এক কোরিয়া বিশেষজ্ঞ বলেছেন, ‘কিমের রিপোর্টগুলো মিডিয়ায় ফাঁস হওয়ার সম্ভাবনা কম।’

উত্তর কোরিয়ার সাথে সম্পর্কিত চীনা কমিউনিস্ট পার্টির আন্তর্জাতিক যোগাযোগ বিভাগের একজন কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, কিম গুরুতর অসুস্থ নন।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!