টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে ইউএনওর ত্রাণ তহবিলে দান স্কুলছাত্রের

নিজস্ব প্রতিবেদক

ছোট্ট শিশু রিয়াজুল ইসলাম। তার ডাক নাম রিয়াদ। মাত্র ১৩ বছরের এই শিশু প্রতিদিন টিফিনের এক টাকা করে বাঁচিয়ে একশ টাকা জমিয়েছে। তার জমানো সেই টাকা অসহায়ের সাহায্যে ইউএনওর ত্রাণ তহবিলে দান করে দিয়েছে সে।

চলমান করোনাভাইরাসের প্রভাবে কর্মহীন ও দুস্থ পরিবারগুলোর অসহায়ত্ব আর দুর্দিনে এই শিশুর হৃদয়ে নাড়া দেয়। তাই সহায়তা করতে তার একশ টাকা ইউএনওর হাতে তুলে দেয় সে।

বুধবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী লুতফুল হাসানের হাতে রিয়াদের টিফিনের একশ টাকা তুলে দেন। এ সময় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

রিয়াদ সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার আব্দুস সামাদের ছেলে। সে হাজী দবির উদ্দিন কিন্ডারগার্টেন স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী। তার বাবা উপজেলা পরিষদের অফিস সহকারী।

এদিকে, শিশু রিয়াদের একশ টাকা ত্রাণ তহবিলে দান করায় প্রশংসায় ভাসছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সৈয়দ রেজা-ই মাহমুদ তাঁর ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে সেই ছবি পোস্ট করেন। এরপর শিশুর মহানুভবতার প্রশংসা করেন অনেকেই।

আসাদ জামান নামে একজন লিখেছেন- অনেক শুভ কামনা রইলো। ওর দানের বিনিময়ে আল্লাহ সবাইকে হেফাজত করুক। সুমন রায় লিখেছেন- রিয়াদ তোমার এই মানসিকতা সত্যি প্রশংসনীয় ও অনুকরণীয়। আলমগীর নামে আরেকজন লিখেছেন- দান এক টাকাও লক্ষ টাকার সমান। এই বাচ্চাটা যে দানের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সেটা থেকে শিক্ষা নেয়ার আছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী লুতফুল হাসান বলেন, আমি ত্রাণ বিতরণের জন্য বের হচ্ছিলাম। এ সময় শিশুটি আমার কাছে এসে ত্রাণ তহবিলে তার টিফিনের বাঁচানো একশ টাকা দান করতে চায়। আমি অবাক হয়েছি এই শিশুর মানবিক মূল্যেবোধ দেখে। বিত্তশালীদের এমন মানসিকতার প্রকাশ পাওয়া উচিত।

 

জার্নাল বাংলা/অর্ণব

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!