মানিকগঞ্জে বিনাচার্জে ঘরে ঘরে ওষুধ পৌঁছে দিচ্ছে পেন্টা সিক্স

রাসেল আহমেদ, মানিকগঞ্জ

রাসেল আহমেদ:  করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরো মানিকগঞ্জে যখন চলছে লকডাউন ঠিক সেই সংকটময় মুহূর্তে মানবকল্যাণে এগিয়ে এসেছে পেন্টা সিক্স নামে একটি ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান।

ওই প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে মানিকগঞ্জ শহরের বাসিন্দারের ঘরে ঘরে সম্পূর্ন ফ্রি সার্ভিস চার্জে ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী সব ধরণের ওষুধ সরবরাহ শুরু করেছে।

এদিকে গত রোববার সন্ধ্যা থেকে জেলাকে লকডাউন ঘোষনা করেছে জেলা প্রশাসন। এখন পর্যন্ত জেলায় ১০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ অবস্থায় সাধারণ মানুষও তেমন বাইরে বের হচ্ছেনা।

তরুনদের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বুধবার জেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেজেও এ সম্পর্কিত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি তার নিজস্ব জনবল দিয়ে জরুরি ওষুধ মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে।

প্রতিষ্ঠানিটি এ জরুরি সেবা দিতে ১০টি হটলাইন নাম্বার চালু করেছে। এ সব নাম্বারে ফোন করে তাদের ফেসবুক পেজে প্রেস্ক্রিপ্সনের ছবি পাঠালেই নির্দিষ্ট ঠিকানায় পৌঁছে যাচ্ছে ওষুধ।

আগে টাকা পরিশোধ না করেও বিনা চার্জে ওষুধ পাচ্ছেন ক্রেতারা। ওষুধ সরবরাহের সময় দোকানের ক্যাশ মেমোতে ওষুধের নাম, দর, পরিমাণ ও মোট টাকার পরিমান লেখা থাকছে। এতে করে বাড়তি টাকা নেয়ারও সুযোগ নেই।

পৌরসভার বেউথা এলাকার মো: আকিবুর রহমান বলেন, পেন্টা সিক্সে আমার ওষুধের প্রেসক্রিপ্সন পাঠাই। তারা বিনা পারিশ্রমিকে আমাকে ওষুধ সরবরাহ করছে। এটি খুবই চমৎকার একটি উদ্যোগ।

আরেক সুবিধাভোগী সীমানুল বারী সীমান্ত বলেন, পেস্ক্রিপ্সনের ছবি পাঠানোর দশ মিনিটের মধ্যে ওষুধ পেয়েছি। এ সংকটময় পরিস্থিতিতে এ ধরনের উদ্যোগ মানুষের কাজে আসবে।

পেন্টা সিক্স কমিউনিকেশনের সিইও সাজ্জাদ আরেফিন মাসুম বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আমাদের প্রতিষ্ঠান এ উদ্যোগ নিয়েছে। চেষ্টা করবো এ সংকটময় সময়ে মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে।

আমার বাবা পেশায় একজন চিকিৎসক। সারা জীবন তিনি মানুষের সেবা করেছেন। আমার বাবার কাছ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে অন্তত মানুষের ওষুধ সরবরাহ করতে পারলে আমার নিজেরও ভাল লাগবে। প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি সদস্য এ বিষয়ে নিরলসভাবে কাজ করছেন।

 

জার্নাল বাংলা/অর্ণব/রাসেল 

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!