মাইকিং করে মরা গরুর মাংস বিক্রি

জার্নাল বাংলা ডেস্ক

টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে মরা গরু জবাই করে মাংস বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে।

গেল সোমবার রাতে ধনবাড়ী পৌর শহরের বনিচন্দ বাড়ি গ্রামের ফেরদৌস মিয়া ও সাঈদ মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে মরা গরু জবাই করে মাংস বিক্রির ঘটনাটি প্রকাশ পেলে উপজেলায় ব্যাপক সমালোচনা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।
এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটিয়েছেন ধনবাড়ী পৌর শহরের বন্দ টাকুরিয়া গ্রামের রেজাউল হকের ছেলে সুজন মিয়া, নূরুল ইসলামের ছেলে মো. রুবেল মিয়া, বাদশা মিয়ার ছেলে মো. লিটু মিয়া এবং কিতাব আলীর ছেলে সাইদুর রহমান।

গরুর মালিক লেবু মিয়া জানান, গেল সোমবার সন্ধ্যায় আমার একটি ৯০ থেকে ৯৫ হাজার টাকার মূল্যের গরু হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়ে। গরুর অসুস্থতা দেখে ধনবাড়ী বাজার থেকে ওষুধ এনে চিকিৎসা দেয়া হয়। ওই দিনই রাত ১০ টায় গরুটি মারা যায়। গরু মরার খবর পেয়ে পার্শ্ববর্তী বাড়ির গরু ব্যবসায়ী সুজন মিয়া, মো. রুবেল মিয়া, মো. লিটু মিয়া ও সাইদুর রহমান আমার বাড়িতে আসে। তারা গরুটি ভ্যানে করে দূরে কোথাও মাটিতে পুঁতে রাখার কথা বলে আমার কাছ থেকে নিয়ে যায়। আমি তাদেরকে ভ্যান ভাড়া বাবদ দেড়শত টাকাও দেই। তারা গরুটি মাটিতে না পুঁতে পার্শ্ববর্তী বনিচন্দ বাড়ী গ্রামের ফেরদৌর মিয়া ও সাঈদ মিয়ার বাড়িতে নিয়ে রাতেই জবাই করে প্রতি কেজি মাংস দুই শত টাকা দরে এলাকাবাসীকে খবর দিয়ে রাতেই বিক্রি করে।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে ঘটনাটি প্রকাশ পেলে পুরো উপজেলায় ব্যাপক চাঞ্চল্যে ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এলাকাবাসী মরা গরু বিক্রিকারীদের বিচার দাবিতে ধনবাড়ী কেরামজানী সড়কের টাকুরিয়া-বান্দ সড়ক অরবোধ করে বিক্ষোভ করে।

এলাকাবাসী ও মরা গরুর মাংস ক্রেতা হুমায়ূন, বেলাল হোসেন, সাদ্দাম হোসেন, রেজাউল করিম ও জয়নাল আবেদীনসহ আরও অনেকেই জানান, রমজান উপলক্ষে প্রায় এক লাখ টাকা মূল্যের একটি গরু জবাই হবে বলে মাইকিং করে প্রচার করে ফেরদৌস ও সাঈদ মিয়া। পরে সেখান থেকে আমরা প্রতি কেজি দুইশত টাকা দরে ৫, ৭ ও ১০ কেজি করে মাংস ক্রয় করি। গতকাল শুক্রবার বিকেলে জানতে পারি গরুটি মরা ছিল। বর্তমান পরিস্থিতিতে গরুটি কি কারণে মারা গেছে এ নিয়ে আমরা চিন্তিত। কেন আমাদের মরা গরুর মাংস খাওয়ানো হলো এর সুষ্ঠু বিচারের জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানাই।

ধনবাড়ী পৌর সভার ছয় নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম তোতা জানান, শুক্রবার এলাকাবাসীর নিকট জানতে পারি এলাকাতে গেল সোমবার রাতে মরা গরু জাবাই করে মাংস বিক্রি করা হয়েছে। এজন্য ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি জানাই।

স্থানীয় ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম তোতা জানান, এ ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। প্রকৃত দোষীদের কঠিন বিচার হওয়া দরকার। যাতে করে এমন ঘটনা আর কেউ ঘটাতে না পারে।
ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. চান মিয়া জানান, ঘটনা শুনার পরপরই আমি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। পুলিশ ঘটনায় জড়িতদের বাড়িতে গিয়ে পায়নি। তারা পালিয়েছে। তাদেরকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এ ব্যাপারে ধনবাড়ী পৌর মেয়র খন্দকার মঞ্জুরুল ইসলাম তপন জানান, আমি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। ঘটনাটি ইউএনও মহোদয় ও ওসি সাহেবকে জানিয়েছি।
ধনবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফা সিদ্দিকা জানান, এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে দৃষ্টামূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!