বরগুনায় নতুন সাতজনসহ শনাক্ত ৩০, মৃত দুই

নিজস্ব প্রতিবেদক

বরগুনা জেনারেল হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে সোমবার পর্যন্ত জেলায় নতুন সাতজনসহ শনাক্ত ৩০, মারা গেছেন ২ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়িতেও ফিরেছেন ২জন। বরগুনায় করোনাভাইরাস নতুন করে সাতজনের পজিটিভ রিপোর্ট আসায় মোট শনাক্তের সংখ্যা ৩০জন। এর মধ্যে মারা গেছেন দুইজন, আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেও গেছেন দুইজন।

নতুন শনাক্ত সাতজনের মধ্যে বরগুনা সদর উপজেলায় তিনজন, আমতলী উপজেলায় তিনজন, বামনা ও বেতাগী উপজেলায় একজন করে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে একজন চিকিৎসক এবং ৩ বছর, ৭ বছর ও ৮ বছরের তিনজন শিশু রয়েছে। বরগুনা জেলা প্রশাসন সূত্র সোমবার সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ল্যাব থেকে প্রাপ্ত রিপোর্টে যে তিনজনের শরীরে পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেছে তাদের দুইজনের বাড়ি পাথরঘাটা উপজেলার। তার মধ্যে একজন কালমেঘা ইউনিয়নের বয়স (২৪)। অপর জনের বয়স (৩৪)।

জানা গেছে এদের কেউই কোন করোনা রোগীর সংস্পর্শে আসেননি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চলার কারণে তাদের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কারণ বলে মনে করা হচ্ছে। অপরজন একজন মহিলার (২৯) বাড়ি আমতলী উপজেলার চাওয়া ইউনিয়নের কালী বাড়ী গ্রামে। ইতোপূর্বে তার স্বামীও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে, বরগুনা সদরে ১২, বামনায় ছয়, আমতলীতে সাত, বেতাগীতে তিন এবং পাথরঘাটায় দুজন। এদেরকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে প্রথম বারের মত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে দুইজন। শুক্রবার বেলা দুটার দিকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে তাদের ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। পরে হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্সে করে তাদের বাড়িতে পৌঁছানো হয়েছে।

বরগুনা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. সোহরাব উদ্দিন তাদের সুস্থ হবার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, পর পর দুই বারের পরীক্ষায় তাদের করোনা নেগেটিভ এসেছে। গত ১১ এপ্রিল বরগুনা সদর উপজেলার ঢলুয়া ইউনিয়নের রায়ভোগ খাকবুনিয়া গ্রামের একজন ও একই উপজেলার কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের আঙ্গারপাড়া ঘটবাড়িয়া গ্রামের একজনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। ওই দিনই তাদের হাসপাতালের আইসোলেশন বিভাগে ভর্তি করে চিকিৎসা শুরু হয়।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!