মিয়ানমারের রাখাইনে সামরিক বাহিনীর বর্বরতা চলছেই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনাভাইরাসের মহামারি মোকাবেলায় সারাবিশ্ব ব্যস্ত। আর এ সময়ে্ও মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী রাখাইন প্রদেশের বেসামরিক জনগণের উপর তাদের বর্বরতা অব্যাহত রেখেছে। এমনটাই দাবি করেছে জাতিসংঘ।

মিয়ানমারে সামরিক বাহিনী এখনো মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে। বেসামরিক লোকজনকে এখনো লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করছে তারা। মিয়ানমার বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি ইয়াংগি লি এই অভিযোগ করেছেন।

গতকাল বুধবার এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ প্রতিনিধি এসব কথা বলেন।

ইয়াংগি লি বলেছেন, সারাবিশ্ব যখন করোনাভাইরাসের মহামারি মোকাবেলায় ব্যস্ত তখন মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী রাখাইন প্রদেশের বেসামরিক জনগণের উপর তাদের বর্বরতা চালিয়ে যাচ্ছে। মিয়ানমারের সেনারা সেখানকার বেসামরিক জনগণকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করছে।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী রাখাইন প্রদেশের জনগণের উপরে যে নিষ্ঠুরতা চালাচ্ছে তাতে তাদের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ধারাবাহিকভাবে আন্তর্জাতিক মানবিক আইন এবং মানবাধিকার লংঘন করে যাচ্ছে।

জাতিসংঘের এই বিশেষ প্রতিনিধি বলেন, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী রাখাইন এবং চিন প্রদেশে যে হতাযজ্ঞ চালিয়েছে তা যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের পর্যায়ে পড়তে পারে।

ইয়াংগি লি বলেন, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী সম্প্রতি রাখাইন ও প্রতিবেশী চীন প্রদেশে যে বিমান হামলা চালিয়েছে তাতে বহু বেসামরিক নাগরিক হতাহত হয়েছে যার মধ্যে বেশকিছু শিশু রয়েছে। শুধু তাই নয়, বিমান হামলায় আহতদের চিকিৎসা নিতে বাধা দিয়েছে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!