নামাজ পড়া নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি

নাটোর সদরের দিঘাপতিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম হাগুরিয়ায় জুম্মার নামাজ পড়াকে কেন্দ্র কওে এলাকাবাসীর সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে চার পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ৫ জন আহত হওয়ার ঘটনায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর মধ্যে ইমামকে মারধর করার ঘটনায় মসজিদের মোয়াজ্জিন আব্দুস সামাদ বাদী হয়ে দায়ের করা মামলায় আসামি করা হয়েছে শাহীনকে।

অপরদিকে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় নাটোর থানার এসআই আনহার বাদী হয়ে ২৫-২৬ জনকে অভিযুক্ত করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। দুটি পৃথক মামলায় পুলিশ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, শাহীন, আহমেদ . মহব্বত, আজিম, আরিফ ও মজনু।

এলাকাবাসী জানায়, শুক্রবার জুমার নামাজে পূর্ব হাগুরিয়া মসজিদের ইমাম সাহেব সরকারি নীতি অনুযায়ী ১২ জন মুসল্লি নিয়ে মসজিদের দরজা বন্ধ করে জুমার নামাজ আদায় করেন। এতে স্থানীয় যুবক শাহীনসহ আরো কয়েকজন জুমার নামাজে অংশ নিতে ব্যর্থ হয়। নামাজ শেষে শাহীন মসজিদের ইমামের উপর চড়াও হলে মুসুল্লিরা তাকে মারপিট করে। এ ঘটনায় শাহিন পুলিশে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় পুলিশের সাথে উত্তেজিত স্থানীয়রা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এলাকাবাসীর হামলা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপে এক নারী কনস্টেবল ও পুলিশ পরিদর্শক সহ চার পুলিশ সদস্য আহত হয়। আহতরা হলেন পুলিশ পরিদর্শক আজহার ইসলাম কনস্টেবল সেকান্দার আলী ও নারী কনস্টেবল মঞ্জু।

এ ঘটনায় পরে পুলিশের এসআই আনহারের মামলায় পুলিশের ওপর হামলা, কর্তব্য কাজে বাধা প্রদানের অভিযোগে আহমেদ . মহব্বত, আজিম, আরিফ ও মজনুকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। অপরদিকে ইমামের ওপর হামলার ঘটনায় শাহীনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!