আমিরসহ তিন পেসার পিসিবির চুক্তি থেকে বাদ

স্পোর্টস ডেস্ক

করোনাভাইরাসের কারণে যাতে আর্থিক সমস্যায় পড়তে না হয় সেজন্য আগামী মৌসুমের জন্য আগেভাগেই কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকা প্রকাশ করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকায় চমক হচ্ছে, তিন পেসার হাসান আলী, ওয়াহাব রিয়াজ ও মোহাম্মদ আমিরের বাদ পড়া ও ২০১৭ সালে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয় করা অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের অবনমন হওয়া।

ইংল্যান্ডে গত ওয়ানডে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের অধিনায়ক ছিলেন সরফরাজ আহমেদ। তার নেতৃত্বে পাকিস্তান দলের পারফরমেন্স ছিল একেবারেই হতাশাজনক। তাই বিশ্বকাপের পর দল থেকে বাদ পড়েন তিনি। সেই সাথে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের অধিনায়কত্বও হারান সরফরাজ। আর আজ হারালেন ওয়ানডে অধিনায়কত্ব। সরফরাজের পরিবর্তে ওয়ানডে অধিনায়ক হয়েছেন বাবর আজম। টি-টোয়েন্টিতেও অধিনায়ক বাবর। আর গত বছর টেস্টের দায়িত্ব ফিরে পান আজহার আলী।

দল থেকে বাদ পড়ায় পিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকায় ‘এ’ থকে ‘বি’ ক্যাটাগরিতে নেমে গেছেন সরফরাজ। আর ‘বি’ থেকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে জায়গা করে নিয়েছেন আজহার ও পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদি। এই ক্যাটাগরিতে আছেন বাবরও। ‘এ’ ক্যাটাগরিতে বেতন ধরা হয়েছে ১১ লাখ পাকিস্তানি রুপি। নতুন মুখ হিসেবে প্রথমবারের মতো কেন্দ্রীয় চুক্তিতে সুযোগ পেয়েছেন তরুণ পেসার নাসিম শাহ। ‘সি’ ক্যাটাগরিতে জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। তার সাথে এই ক্যাটাগরিতে যুক্ত হয়েছেন ইফতেখার আহমেদ। এই ক্যাটাগরির বেতন সাড়ে ৫ লাখ পাকিস্তানি রুপি।

কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকায় ইর্মাজিং ক্যাটাগরিতে নাম উঠেছে হায়দার আলী, মোহাম্মদ হাসনাইন ও হারিস রউফের। গত মৌসুমে কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকায় ‘এ’ ক্যাটাগরিতে থাকা টেস্ট খেলোয়াড় স্পিনার ইয়াসির শাহ ‘বি’ ক্যাটাগরিতে নেমে গেছেন। অবনতি হয়েছে ওপেনার ইমাম উল হকের। ‘বি’ থেকে ‘সি’ ক্যাটাগরিতে নেমে গেছেন তিনি। ২০১৯ সালে ৫ ম্যাচে ৭৫ গড়ে ১০ উইকেট শিকার করেছেন ইয়াসির। ‘সি’ থেকে ‘বি’ ক্যাটাগরিতে উন্নতি হয়েছে আবিদ-রিজওয়ান-মাসুদের। ‘বি’ ক্যাটাগরিতে বেতন সাড়ে ৭ লাখ রুপি।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!