ঈদকে ঘিরে চলছে ভেজাল পণ্য উৎপাদন রংপুরে

নিজস্ব প্রতিবেদক

রংপুরে কিছুতেই থামানো যাচ্ছেনা ভেজাল পণ্যের উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ। করোনা দুর্যোগের এই মূহুর্তে ঈদকে সামনে রেখে এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী দেদারছে ভেজাল খাদ্য ও প্রসাধনী পণ্যের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী অভিযান চালিয়েও দমন করতে পারছেনা এসব অসাধু ব্যবসায়ীদের। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মহানগর ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে ভেজাল লাচ্ছা সেমাইসহ বিপুল পরিমান পণ্য জব্দ করে। এ সময় প্রস্তুতকারী ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত।

মহানগর ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গতকাল দুপুরে নগরীর তাজহাট এলাকায় দিপু ফুড প্রডাক্ট নামে এক প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালানো হয়। সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ লাচ্ছা সেমাই, চানাচুর, বুটসহ অন্যান্য নকল ও ভেজাল খাদ্যপণ্য জব্দ করা হয়। এ সময় প্রতিষ্ঠানের মালিক কামরুল হাসান চৌধুরীর স্ত্রী মাসুদা আক্তার পলিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাইদ।

এর আগে ১১ এপ্রিল নগরীর খাসবাগ এলাকায় ময়েন উদ্দিনের ছেলে মিথুন সরকারের বাসা ও ভাড়া গোডাউনে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বিপুল পরিমান বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পাউডার, ভ্যাসলিন, ফেসওয়াস, আতরসহ বিভিন্ন পণ্য উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য কয়েক লাখ টাকা। এক বছরের বেশি সময় ধরে নকল প্রসাধনী তৈরি করে বাজারজাত করে আসছিল সে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ওই ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন আদালতের বিচারক জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফরিন জাহান।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার উত্তম প্রসাদ পাঠক জানান, রংপুরে নকল ও ভেজাল পণ্য প্রস্তুত ও বাজারজাতকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। করোনাক্রান্তি ও ঈদকে সামনে রেখে অসাধু ব্যবসায়ীরা ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে কাউকে ছাড় দেওয়া হবেনা।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!