ভারতের যে ৩ জেলা লণ্ডভণ্ড করে যেতে পারে আম্পান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২০০৭ সালের সিডরের মতোই শক্তি নিয়ে আসতে পারে ঘূর্ণিঝড় আম্পান। ঘণ্টায় গড়ে ৮-১২ কিলোমিটার বেগে এটি উপকূলের দিকে এগোচ্ছে এবং শক্তি সঞ্চয় করে ‘সুপার সাইক্লোনে’ রূপ নিয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

ভারতের আলিপুর আবহাওয়া দফতরের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, ১৯৯৯ সালে উড়িষ্যায় আছড়ে পড়া ‘সুপার সাইক্লোন’-এর মতোই ভয়ঙ্কর চেহারা নেবে ঘূর্ণিঝড় আম্পান।

আবহাওয়া দফতরের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, আম্পানের প্রভাব সব থেকে বেশি পড়বে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় । এই তিন জেলাকে লণ্ডভণ্ড করে দিয়ে যাবে আম্পান।

২০ মে (বুধবার) বিকালের পর ঘণ্টায় ১৯৫ কিলোমিটার বেগে ঝড় বয়ে যাবে এই তিন জেলায়।

এর সঙ্গে ২০০ মিলিমিটারের বেশি ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে।

বুধবার ভারতের মালদা, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরেও ভারী বৃষ্টি হতে পারে। বৃহস্পতিবার সিকিমেও ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

এছাড়া প্রবল জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কাও করা হচ্ছে।

ভারতের আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, বুধবার উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় নিচু এলাকাতে জলোচ্ছ্বাস ৪ থেকে ৫ মিটার পর্যন্ত উঠতে পারে। অন্যদিকে পূর্ব মেদিনীপুরে এই জলোচ্ছ্বাস ৩ থেকে ৪ মিটার পর্যন্ত হতে পারে।

এদিকে আম্পানের প্রভাবে মঙ্গলবার কলকাতা ও এর পার্শ্ববর্তী ৭ জেলায় ৪৫ থেকে ৬৫ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সঙ্গে ৭০ থেকে ১১০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। সন্ধার দিকে এই ঝড়ের গতিবেগ আরও বাড়বে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর আরও জানিয়েছে, প্রবল শক্তি বাড়িয়ে আম্পানের গতিবেগ বুধবারই ২৬৫ কিলোমিটার ছাড়াবে । এই সুপার সাইক্লোন এখন পশ্চিমবঙ্গের দিঘা থেকে ৮৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে ও পারাদ্বীপ থেকে ৭৩০ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে এক হাজার ১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছে। এটি ২০ মে মারাত্মক শক্তি নিয়ে দিঘা থেকে বাংলাদেশের নোয়াখালীর হাতিয়া দ্বীপ পর্যন্ত উপকূলজুড়েই আছড়ে পড়তে পারে। তখন তার গতি থাকবে ঘণ্টার ১৯৫ কিলোমিটার।

ঘূর্ণিঝড়টির ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে ইতিমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে ভারত সরকার। উড়িষ্যা এবং পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশের সরকার উপকূলীয় এলাকাগুলো থেকে লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নেয়ার জন্য দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা টিম মোতায়েন করেছে।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!