কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার দায়ে মার্কিন পুলিশ কর্মকর্তা আটক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গেল সোমবার নির্মমভাবে শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে খুন হন মার্কিন কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েড (৪৬)। কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তিকে শ্বাসরোধ করে হত্যার ঘটনায় জড়িত পুলিশ কর্মকর্তাকে ইতোমধ্যে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ‘থার্ড ডিগ্রি হত্যার অভিযোগ’ আনা হয়েছে।

গত ২৫ মের ঘটনার বিচারের দাবিতে মিনিয়াপোলিসসহ যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কিছু জায়গায় সহিংস বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়লে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়।

গেল শুক্রবার মিনেসোটার তদন্তকারীরা ডেরেক চভিন নামে ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে আটক করে। তার বিরুদ্ধে নিরস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তি জর্জ ফ্লয়েডকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ রয়েছে।

এর আগে, এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গত সোমবার ডেরেক চভিনসহ তিন জন পুলিশ কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

এক প্রত্যক্ষদর্শীর ধারণ করা ১০ মিনিটের একটি ভিডিওতে দেখা যায়, হাঁটু দিয়ে এক কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তিকে গলা চেপে ধরে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছেন এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ সদস্য। নিহত ব্যক্তি নিরস্ত্র ছিলেন। নিঃশ্বাস নিতে না পেরে তাকে কাতরাতে দেখা যায়। তিনি বারবার শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসারকে বলছিলেন, আমি নিঃশ্বাস নিতে পারছি না। ওই হত্যাকাণ্ডের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে যাওয়ার পরই ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

উল্লেখ্য, জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যার বিচারের দাবিতে বিক্ষোভের সময় মিনেসোটা, নিউইয়র্ক এবং আটলান্টায় পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ হয়। লস অ্যাঞ্জেলস থেকে শুরু করে নিউইয়র্কেও শুরুর দিকে বিক্ষোভকারীরা শান্তিপূর্ণভাবে নিজেদের দাবি তুলে ধরেছেন। তবে গতকাল সিএনএন-এর প্রধান কার্যালয়ের সামনে পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষোভকারীরা। বিক্ষোভকারীরা জমায়েত হতেই হোয়াইট হাউস লকডাউন করে দেওয়া হয়। পরিস্থিতি বিবেচনা করে মিনেসোটার গভর্নর কারফিউ জারি করেন। বিক্ষোভকারীদের দাবি, পুলিশ এভাবে কারো সঙ্গে নির্মম আচরণ করতে পারে না। সেই সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত সকল কৃষ্ণাঙ্গের ওপর এ ধরনের নিপীড়ন বন্ধ করতে হবে।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!