যুবলীগ কর্মী তাপস হত্যা: অস্ত্রসহ অন্যতম আসামি গ্রেফতার

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় প্রকাশ্যে যুবলীগ কর্মী তাপস হত্যা মামলার অন্যতম আসামি সাইমুনকে (১৭) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার ভোর রাতে ঢাকার বাবু বাজার এলাকার একটি হোটেল থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত সাইমুনের বাড়ি পৌর শহরের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ওয়াদুদ মিয়া সড়কের পশ্চিম পাশে শান্ত গ্রামের ঝন্টু প্যাদার ছেলে। সাইমুন হত্যা মামলার তিন নম্বর আসামি।

পটুয়াখালী জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ বিল্লাল হোসেন জানান, গোপন খবরের ভিত্তিতে ডিবি পুলিশের একটি দল বাবু বাজার এলাকার একটি হোটেল থেকে সাইমুনকে গ্রেফতার করে। পরে তার সাইমুনের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে বাউফল পৌর শহরের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সাহাপাড়া সনজিৎ সাহা ওরফে সনু সাহারা বাড়ির কাছে একটি পরিত্যাক্ত ডোবা থেকে হত্যায় ব্যবহৃত চাকুটি উদ্ধার করে পুলিশ।

উল্লেখ, গত ২৪ মে পৌর শহরের থানা সংলগ্ন জেলা পরিষদ ডাকবাংলোর সামনে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য বার্তার সংবলিত একটি তোরণ নির্মাণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় এমপি আসম ফিরোজ গ্রুপ এবং জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বাউফল পৌর মেয়র জিয়াউল হক জুয়েল সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ সময় তাপস নামের এক যুবলীগ কর্মী ছুরিকাঘাতের শিকার হয়ে ওই দিন রাতে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ ঘটনায় নিহত তাপসের ভাই পঙ্কজ দাস বাদী হয়ে মামলা করে।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!