যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের হামলার শিকার অস্ট্রেলিয়ান সাংবাদিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আফ্রিকান আমেরিকান জর্জ ফ্লয়েডের হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে সোমবার হোয়াইট হাউজের সামনে একটি পার্কে শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হচ্ছিল। কিন্তু এসময় পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ওপর তাণ্ডব চালায়। আর সেই তাণ্ডব থেকে ধর্মীয় নেতা ও আইনপ্রণেতা বা মিডিয়া কেউই রেহাই পায়নি। খবর ইউএসএ টুডের।

ওইদিন হোয়াইট হাউজের সামনে থেকে বিক্ষোভের সংবাদ সংগ্রহ করছিলেন অস্ট্রেলিয়ার চ্যানেল সেভেন নিউজের সংবাদকর্মীরা। কিন্তু এসময় যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রয়োগ সংস্থার একজন কর্মকর্তা অস্ট্রেলিয়ার একজন সাংবাদিককে আঘাত করেন।

অস্ট্রেলিয়ার টেলিভিশনে লাইভ সম্প্রচারিত ওই ঘটনায় দেখা যায় যে, এক পুলিশ সদস্য চ্যানেল সেভেন নিউজের ক্যামেরাম্যান টিম মায়ার্সের পেটে একটি শিল্ড দিয়ে আঘাত করেন এবং পরে হাত দিয়ে তাকে ঘুষিও মারেন। ওই হামলায় অবাক হয়ে যান মায়ার্স এবং তার সহকর্মী রিপোর্টার অ্যামেলিয়া ব্রেস। পরে সম্প্রচারের সময় ব্রেস বলেন, এটা খুবই সহিংস ছিল।

ওই হামলার পর অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ম্যারিস পেইন বলেছেন, তিনি যুক্তরাষ্ট্রে তার দেশের রাষ্ট্রদূতকে ওই ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি ওয়াশিংটনে মার্কিন কর্মকর্তাদের কাছে কীভাবে নিজেদের ‘জোরালো উদ্বেগ’ তুলে ধরা যায়, সেটাও খতিয়ে দেখতে রাষ্ট্রদূতকে নির্দেশ দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়ার একটি রেডিওকে পেইন বলেন, এটা খুবই গুরুতর একটি বিষয়। ওই ঘটনায় তদন্ত করা হবে অস্ট্রেলিয়ার এমন সিদ্ধান্তের বিষয়ে প্রথম খবর প্রকাশ করে মার্কিন গণমাধ্যম ফরেন পলিসি ম্যাগাজিন।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে অস্ট্রেলিয়ার রাষ্ট্রদূত আর্থার সিনোডিনোস বলেছেন, এ বিষয়ে সাহায্যের জন্য তিনি যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের কাছে সহায়তা চেয়েছেন।
মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত করতে চ্যানেল সেভেন আনুষ্ঠানিকভাবে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করবে বলে জানতে পেরেছি। আমরা স্টেট ডিপার্টমেন্টের সঙ্গে কথা বলছি এবং তারা আমাদের এ বিষয়ে সাহায্য করছে।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!