কিডনি দেবেন মা, তবে প্রতিস্থাপনের টাকা নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার প্রবাসফেরত মো. সোহেল মিয়ার (২০) দুটি কিউনি বিকল। তাঁর মা চাইছেন একটি কিডনি দিতে। তবে কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য যে টাকা দরকার সেটি কোনোভাবেই জোগাড় করতে পারছেন না সোহেলের পরিবার।

এই অবস্থায় উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের মরহুম আবদুল আওয়ালের ছেলে সোহেল মৃত্যুকে সামনে রেখেই দিন কাটাচ্ছেন। টাকা জোগাড় করতে না পেরে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তাঁর মাসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা।

এলাকাবাসী ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দরিদ্র ঘরের সন্তান সোহেল মিয়ার বাবা নেই। মা, ভাই-বোনসহ ৮ সদস্যের পরিবার। অভাব অনটনের কারণে লেখাপড়া বেশিদূর করতে পারেননি। টানাপোড়েনের সংসারে হাসি ফুটাতে ধার-দেনা করে ২০১৮ সালে চলে যান আরব আমিরাতে। ২০১৯ সালে আরব আমিরাতে চাকুরিরত অবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়েন সোহেল। সেখানকার একটি হাসপাতালে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সোহেলের দুইটি কিডনি বিকল ধরা পড়ে। মাত্র এক বছরের মাথায় অসুস্থতা নিয়ে দেশে ফিরে আসতে হয়েছে তাকে।

সোহেলের মা হাজেরা খাতুন জানান, গত দেড় বছর ধরে নিজের সব কিছু বিক্রি করে ও আত্মীয় স্বজন, প্রতিবেশীদের কাছ থেকে সাহায্যে নিয়ে সোহেলের চিকিৎসা করানো হচ্ছে। তাকে নিয়মিত ডায়ালসিস করাতে হয়। এখন সে ভর্তি আছে বাজিতপুরের মেডিক্যাল কলেজে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন একটি কিডনি দিলে তাকে বাঁচানো সম্ভব। ছেলেকে কিডনি দিতে চাই। কিন্তু এটা প্রতিস্থাপন করতে যে ১০ লাখ টাকা প্রয়োজন সেটা জোগানো কোনোভাবেই সম্ভব না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি আমাকে সাহায্য করেন তাহলেই ছেলেকে বাঁচানো সম্ভব হবে।

তিনি জানান, সবার সহযোগিতা ছাড়া সোহেলকে বাঁচানো যাবে না। সোহেলের চিকিৎসার সাহায্য কামনা করে সোনালী ব্যাংক, বিজয়নগর শাখায় একটি হিসাব খোলা হয়েছে। যার হিসেব নং- ১৪২৪১০১০০৮১৯৩। এ ছাড়া বিকাশ নম্বর ০১৩১১৬২৩৯৯৮ এ সাহায্য পাঠানো যাবে।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!