নোয়াখালীতে প্রতিবন্ধী তরুণী ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরএলাহী ইউনিয়নে এক প্রতিবন্ধী তরুণীকে (১৮) ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নির্যাতিতা তরুণীর পালক পিতা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার কোম্পানীগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত যুবক শিপন (২২) পলাতক রয়েছে। অভিযুক্ত শিপন চরএলাহী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড চরযাত্রা গ্রামের জাপানী জসিমের বাড়ির প্রবাসী বেলাল হোসেনের ছেলে।

বৃহস্পতিবার সকালে ধর্ষিতা প্রতিবন্ধী তরুণীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা ওই তরুণী তার পালক পিতার সঙ্গে কোম্পানীগঞ্জের চরএলাহী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড চরযাত্রা গ্রামে ছাদু মিস্ত্রি বাড়িতে বসবাস করত। সে একজন মানসিক প্রতিবন্ধী।

গত সোমবার বিকাল ৪টার দিকে চরযাত্রা গ্রামের স্থানীয় একটি চা দোকান থেকে সদাই নিয়ে নিজ বাড়িতে যাচ্ছিল ওই তরুণী। কিছু পথ যাওয়ার পর লম্পট শিপন তরুণীকে গতিরোধ করে এবং ফুসলিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি মৎস্য খামারে নিয়ে যায়। খামারের পেছনের একটি নির্জন স্থানে নিয়ে তরুণীকে মুখ ও হাত-পা বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে শিপন।

বিষয়টি জানা-জানি হওয়ার পর বুধবার রাতে নির্যাতিতার পালক পিতা বাদী হয়ে শিপনকে একমাত্র আসামি করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রবিউল হক জানান, মানসিক প্রতিবন্ধী ওই তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে শিপন নামের যুবকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়েছে। ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষক শিপনকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Facebook Comments
আরো পড়ুন
error: Content is protected !!