এক শিশুকে বাঁচাতে গিয়ে আরেক শিশুর মৃত্যু

নেত্রকোনা প্রতিনিধিঃ রানা সরকার

দুই শিশু গোসল করতে নেমেছিল পুকুরে। এর মধ্যে একজন তলিয়ে যেতে থাকে। তাকে উদ্ধার করতে যায় আরেকজন। একপর্যায়ে সে-ও তলিয়ে যায় পানিতে। আজ রোববার এভাবে পানিতে ডুবে দুই চাচাতো ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে নেত্রকোনার আটপাড়ায়।

একই দিন মদন উপজেলায় পুকুর থেকে বাক্‌প্রতিবন্ধী এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পরিবার। শেরপুরের নকলায় পুকুরের পানিতে ডুবে মারা গেছে এক শিশু।

আটপাড়ায় মারা যাওয়া দুজন হলো মোবারকপুর গ্রামের সাদেক মিয়ার ছেলে আমির হামজা (৬) ও হবি মিয়ার ছেলে মো. সানি (৫)। মদনে উদ্ধার করা লাশটি ছত্রকোনা গ্রামের শামীম কবিরের ছেলে তোয়া আক্তারের (৫)। আর নকলায় মারা যাওয়া শিশুটির নাম আকাঈদ রহমান (২)। সে রুণীগাঁও গ্রামের রাজীব সরকারের ছেলে।

আটপাড়ার কয়েকজন দৈনিক জার্নাল বাংলাকে জানান, আমির ও সানি আজ বেলা একটার দিকে বাড়ির পাশের পুকুরে গোসল করতে নামে। এ সময় সানি তলিয়ে যেতে থাকলে হামজা তাকে উদ্ধার করার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে সে-ও ডুবে যায়। টের পেয়ে বাড়ির লোকজন তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

আটপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী হোসেন দৈনিক জার্নাল বাংলাকে জানান, পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শিশু দুটির লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মদন থানার পুলিশ জানায়, তোয়া গত শনিবার রাতে পরিবারের লোকদের সঙ্গে খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। আজ সকালে পরিবারের লোকজন ঘুম থেকে উঠে তাকে বিছানায় না পেয়ে চারপাশে খোঁজাখুঁজি করেন। একপর্যায়ে তাঁরা বাড়ির সামনে পুকুরে শিশুটির লাশ ভাসতে দেখেন। পরে লোকজন তাকে উদ্ধার করে।

জানতে চাইলে মদন থানার ওসি আহমেদ কবীর হোসেন দৈনিক জার্নাল বাংলাকে জানান, ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

গৌড়দার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. শওকত হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Facebook Comments
আরো পড়ুন